1. ctgnews16@gmail.com : ctgnewsbd : Nurul Absar Ansary
  2. banglahost.net@gmail.com : rahad :
চট্টগ্রামে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট প্রতীক দত্তকে নিয়ে নেতিবাচক প্রচারণার প্রতিবাদ ক্যাবের - Ctg News BD
বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৫:৪৩ অপরাহ্ন
ঘোষনা
বিনা অনুমতিতে সার্জেন্ট সবুজ চেকপোস্ট বসানোই কাল হলো সিএনজি চালকের ওষুধ কেনার টাকা নেই তাই পেটে ছুরি ঢুকিয়ে আত্মহত্যা রিকশাচালকের ই-লাইসেন্স দেখিয়ে গাড়ি চালানোর অনুমতি দিলো বিআরটিএ পুলিশের হুইসেল-সাউন্ড গ্রেনেড শুনে পালাবে না, সেই সাহস নিয়ে দাঁড়াতে হবে- ফখরুল মাদক, কিশোর গ্যাং এবং যানজট নিরসনে সিএমপি কমিশনারের সহযোগিতা চাইলেন সুজন স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে ইনোভেশনের বিকল্প নেই: বিভাগীয় কমিশনার তৃতীয় লিঙ্গের কেউ চাঁদাবাজি করলে আইনি ব্যবস্থা: ডিএমপি কমিশনার ভারতীয় পণ্য বয়কটের নামে বাজার অস্থিতিশীল করতে চায় বিএনপি-কাদের বিদেশি কোনো শক্তি এই সরকারকে ক্ষমতায় রাখতে পারবে না : আমির খসরু বেশি কথা বললে সব রেকর্ড ফাঁস করে দেব: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

চট্টগ্রামে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট প্রতীক দত্তকে নিয়ে নেতিবাচক প্রচারণার প্রতিবাদ ক্যাবের

নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ১৯ মার্চ, ২০২৪
  • ৭৩ বার পঠিত

দেশের বৃহত্তম পাইকারী বাজার চট্টগ্রামের খাতুনগঞ্জে অমর মজুমদার নামক ব্যবসায়ী কর্তৃক ১৩০০ টাকায় এলাচ আমদানি করে ৩৯০০ টাকায় বিক্রির ঘটনা চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট প্রতীক দত্ত অভিযান পরিচালনা করে

উদঘাটনের পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কতিপয় ব্যক্তি প্রতীক দত্তকে নিয়ে নেতিবাচক প্রচারণা ও ট্রল করতেছে। এ ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে অবিলম্বে এধরনের নেতিবাচক প্রচারণা বন্ধের দাবি জানিয়েছেন দেশের ক্রেতা-ভোক্তাদের স্বার্থ সংরক্ষনকারী জাতীয় প্রতিষ্ঠান কনজ্যুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব) চট্টগ্রামের নেতৃবৃন্দ। এধরনের নেতিবাচক প্রচারণার বিষয়টি নিত্যপণ্য ও ভোগ্যপণ্যের বাজার তদারকিতে অতিমুনাফা, মজুতদারি ও সিন্ডিকেট নিয়ন্ত্রণে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা বাস্তবায়নে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করবে।

১৯ মার্চ ২০২৪ চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট প্রতীক দত্তের বিষয়ে নেতিবাচক প্রচারণায় ক্ষোভ প্রকাশ করে গণমাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেন ক্যাব কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস প্রেসিডেন্ট এস এম নাজের হোসাইন, ক্যাব চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাধারণ সম্পাদক কাজী ইকবাল বাহার ছাবেরী, ক্যাব মহানগরের সভাপতি জেসমিন সুলতানা পারু, সাধারণ সম্পাদক অজয় মিত্র শংকু, ক্যাব চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা সভাপতি আলহাজ্ব আবদুল মান্নান প্রমুখ।

বিবৃতিতে ক্যাব নেতৃবৃন্দ বলেন, বর্তমান ক্ষমতাসীন সরকারের নির্বাচনী অঙ্গীকারের অন্যতম প্রধান অগ্রাধিকার খাত ছিলো নিত্যপণ্যের বাজার স্থিতিশীল রাখা। পরবর্তীতে মন্ত্রীসভা গঠন এবং সরকারের বিভিন্ন সভা, সেমিনার এমনকি সম্প্রতি অনুষ্ঠিত জেলা প্রশাসক সম্মেলন, র‌্যাব এর প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর বক্তব্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বারবার নিত্যপণ্যের বাজার সহনীয় রাখতে সংস্লিষ্ঠ সকলকে নির্দেশনা প্রদান করেন। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনক হলেও সত্য যে, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও সরকারের কর্তা ব্যক্তিদের নানা নির্দেশনা প্রদান করলেও মাঠ পর্যায়ে তার প্রতিফলন সেভাবে পরিলক্ষিত হয়নি। যার কারনে রমজানের আগের দিন ৫ টাকার লেবু ২০ টাকায় গিয়ে ঠেকেছে। খাতুনগঞ্জে ১৩০০ টাকায় আমদানিকৃত এলাচ বাজারে ৩৯০০ টাকায় বিক্রির মতো হাজারো ঘটনা প্রতিনিয়তই ঘটছে। আমদানিকারক অমর মজুমদারের মতো হাজার হাজার অসাধু ব্যবসায়ী লক্ষ হাজার কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন। পুরো দেশজুড়ে অতিমুনাাফার প্রতিযোগিতার মহোৎসব চলছে। খাতুনগঞ্জে বিনা রশিদে বিক্রি ও ডিও ব্যবসার পরিবর্তে এখন স্লিপ ব্যবসার মতো নিষিদ্ধ জুয়াডি ব্যবসারও প্রসার ঘটেছে।

নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট প্রতীক দত্তের সাহসী ভূমিকার কারনে যেভাবে খাতুনগঞ্জে এলাচ এর ঘটনা, চিনির ক্রয়-বিক্রয় রশিদ না থাকা, রিয়াজউদ্দীন বাজারের কোল্ড স্টোরেজে ১০০ টন খেজুর মজুদ এবং পরবর্তীতে হাজারী গলিতে মেয়াদোত্তীর্ন ইনসুলিন বিক্রিসহ নানা চাঞ্চল্যকর ঘটনার উদঘাটন সম্ভব হয়েছে। জেলা প্রশাসন যদি এ ধরনের অভিযান পরিচালনা না করতেন তাহলে এ ধরনের ঘটনা জাতির কাছে উপস্থাপন হতো না। তাই ম্যাজিস্ট্রেট প্রতীক দত্তের বিরুদ্ধে নেতিবচক প্রচারণার কারণে সিন্ডিকেট ও মজুদদাররা আরও বেপরোয়া হয়ে এ ধরনের অভিযানগুলো বন্ধ করার জন্য সরকার ও প্রশাসনকে নানাভাবে চাপ প্রয়োগ করবে। যা ব্যবসায়ীদেরকে ”সোমালিয়ার জলদস্যুর মতো মানুষকে জিম্মি করে জনগনের পকেট কাটার উৎসবকে” বিপুল ভাবে উৎসাহিত করবে।

নেতৃবৃন্দ ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, চট্টগ্রামে দীর্ঘদিন ধরেই পবিত্র মাহে রমজানে বাজার তদারকিতে জেলা প্রশাসনের নেতৃত্বে, সিটি করপোরেশন, চট্টগ্রাম চেম্বার, ক্যাব চট্টগ্রাম, দেকান মালিক সমিতি ও সরকারের ভোক্তা অধিকার, বিএসটিআই, কৃষি বিপনন, মৎস্য অধিদপ্তর ও সাংবাদিক প্রতিনিধি নিয়ে সমন্বিত বাজার তদারকির মডেল চলমান থাকলেও ব্যবসায়ীদের চাপের কারনে এবারই এধরনের কোন উদ্যোগ নেয়া হয়নি। যার কারনে চট্টগ্রামের নিত্যপণ্য ও ভোগ্যপণ্যের বাজারে ব্যবসায়ীরা তাদের মতো করে জনগনকে জিম্মি করে অতিমুনাফা করে জনগনের পকেট কাটছেন। সরকারের প্রশাসন ও অন্যান্য বাজার তদারকি সংশ্লিষ্ট দপ্তর সেখানে কার্যত নিরব দর্শক। যার কারনে পবিত্র মাহে রমজান সাধারন মানুষের জন্য নাজাতের মাস না হয়ে দুর্ভোগের মাসে পরিনত হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Theme Customized BY WooHostBD